আল মামুন

কমিউনিটি রেডিও : ‘কি একখান রেডিও আইলো, লগেই রাহি’

কমিউনিটি রেডিও : ‘কি একখান রেডিও আইলো, লগেই রাহি’

আল মামুন
জীবনডা কাডাইলাম পানির উফ্রেই। হারাদিন পানিতে ভাইস্যা থাহি, আর মাছ ধরি।কি ঝড়-বইন্যা আর ছাইক্লোন-সিডর— কত কিছুই তো জীবনে দেকলাম। কত মানুষের চোক্ষের সামনে ডুইব্যা মরতে দেকলাম, হেয়ার হিসাব নাই। এহন কি একখান রেডিও আইলো যেয় কিনা আমাগোরে বাইচ্যা থাহনের কতা কয়। রেডিওখান সব সমায় লগেই রাহি।
বরগুনার কমিউনিটি রেডিও লোকবেতার সম্পর্কে কথাগুলো বলছিলেন সদর উপজেলার বড়ইতলা গ্রামের জেলে ষাটোর্ধ মো. নুরুল ইসলাম। বড়ইতলা ফেরি ঘাটে নৌকায় বসে তার সঙ্গে কথা হয়। তার জীবনের অর্ধেকেরও বেশি মাছ ধরার কারণে নদীতেই কেটে গেছে বলে জানান।
সাগরপাড়ের জেলা বরগুনা। এ জেলার অধিবাসীদের প্রতিনিয়ত প্রাকৃতিক দুর্যোগের সাথে যুদ্ধ করে বেঁচে থাকতে হয়।এই অঞ্চলের এক তৃতীয়াংশ মানুষ প্রতিনিয়ত লড়াই করে চলছে প্রতিকূল পরিবেশের সাথে। বন্যায় এ অঞ্চলের বসতবাড়ি ফসল ও গবাদি পশু ভেসে যায়। ঘটে অসংখ্য মানুষের প্রাণহানি। এসব এলাকার যারা জেলে, মাছ ধরা যাদের পেশা তাদের প্রতিনিয়ত মোকাবিলা করতে হয় নানা রকম প্রাকৃতিক দুর্যোগ। সিডর, মহাসেনের মত বড় বড় ঘূর্ণিঝড় এদেরকে প্রায় নিঃস্বকরে দিয়েছে। কারো কেড়ে নিয়েছে প্রাণ।
মাছ ধরার সময় জেলেরা নদীতে অবস্থানকালে ঘূর্ণিঝড় হলে তারা বুঝতে পারেন না তা কতটা ভয়াবহ হতে পারে।এক রকম অনিশ্চিয়তায় জীবন কাটে তাদের। হঠাৎ ঝড় শুরু হলে উপকূলে উঠে আসারও সময় পান না। এক্ষেত্রে কমিউনিটি রেডিও প্রচারিত আবহাওয়া বার্তা তাদেরকে সতর্ক করতে পারে এবং উপকূলে এসে নিরাপদে আশ্রয় নিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।
নুরুল ইসলামের মত উপকূলের জেলেদের আশা ভরসার প্রতীক হয়ে উঠেছে লোকবেতার। এর আবহাওয়াবার্তা, সতর্কবার্তাসহ ‘উপকূলের জীবন’ অনুষ্ঠান শুনে জেলেরা সচেতন হতে পারছেন।
নদীতে মাছ ধরার সময় জেলেরা সাথে রাখেন রেডিও, শোনেন লোকবেতার। আর লোকবেতার প্রতি মুহূর্তে জেলেদের কাছে পৌঁছে দেয় দুর্যোগের খবরা খবর। মৎস্যজীবী সম্প্রদায় দুর্যোগ বিষয়ক খবরে সরাসরি উপকার পেয়ে থাকেন।
নুরুল ইসলাম বলেন, মহাসেন যহন আইলো, মোরা তহন নদীতে মাছ ধরতে আছিলাম।এয়ার মধ্যে দেহি নদী উত্তাল হইয়া উঠল। পানি খালি লাফায়। ঢেউ আর ঢেউ। কী অইবে না অইবে এইডা বুঝি নাই। লগে রেডিও আছিল, লোকবেতার হুনলাম। লোকবেতার আমাগো উফরে উইড্যা নিরাপদে যাইতে কইলো। আমরা উইড্যা আইলাম।
প্রাকৃতিক দুর্যোগে ক্ষয়ক্ষতির ঝুঁকি হ্রাসে কমিউনিটি রেডিওর ভূমিকা অনস্বীকার্য। স্থানীয় ভাষারীতিতে সহজ ভাবে দুর্যোগের সতর্কবার্তা, আগাম সাবধানতা, দুর্যোগকালীনও দুর্যোগপরবর্তী করণীয় এবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার আরো বিষয়সহ নানাভাবে এ রেডিও দুর্যোগপ্রবণ এলাকাগুলোতে প্রচার চালিয়ে মানুষের জীবনও সম্পদকে নিরাপদ করতে পারে। বিশেষ করে উপকূলীয় অঞ্চলে মৎস্যজীবী সম্প্রদায় দুর্যোগ-সংক্রান্ত প্রচাওে সরাসরি উপকার পেয়ে থাকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *