আল মামুন

যে চারটি বই বদলে দিয়েছিল ড. কালামের জীবন

যে চারটি বই বদলে দিয়েছিল ড. কালামের জীবন

বই মানুষের প্রকৃত বন্ধু। বই পড়লে সুন্দর সুন্দর স্বপ্ন দেখার পথ উন্মুক্ত হয়ে যায়। বুদ্ধির জাগরণ বই পড়া ছাড়া অসম্ভব। মানসিক ও আত্মিক জীবনের প্রচেষ্টা থেকে চরিত্রের যে সৌন্দর্য ফুটে ওঠে তা বই পড়ার মাধ্যমেই সম্ভব। বই দিয়ে জীবন বদলানোর অসংখ্য উদাহরণ আছে আমাদের আশপাশে। তেমনি ড. কালামের জীবন বদলের পেছনে চারটি বইয়ের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। যে চারটি বই তাঁর দৃষ্টিভঙ্গি পাল্টে দিয়েছিল। তাঁর লেখা ‘ইগনাইটেড মাইন্ডসে’ এই চারটি বইয়ের নাম উল্লেখ করেছেন।

বিচারপতি হরিহর মহাপাত্র’র জন্মদিন উদ্যাপন অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার জন্য একবার ওড়িশা রাজ্যের কটক জেলায় গিয়েছিলেন ড. কালাম। অনুষ্ঠানে নিমন্ত্রণ করেছিলেন বিচারপতি রঙ্গনাথ মিশ্র। সেখানে গিয়ে মানবজীবনকে যেনো নতুন করে আবিস্কার করেন ড. কালাম। বিচারপতি তাঁর কর্মের দ্বারা মৃত্যুকে জয় করে সবার মাঝে বেঁচে আছেন। ৯২ বছরের জীবনে তিনি কটকে প্রতিষ্ঠা করেছেন চক্ষু হাসপাতাল, উৎকল বিশ্ববিদ্যালয় এবং দারিদ্র-বিমোচন বিয়ষক কয়েকটি সেবামূলক প্রতিষ্ঠান। জন্মদিন অনুষ্ঠানে বক্তব্য দিতে হলো ড. কালামকে। বক্তব্য শেষ হতেই কিশোর-তরুণরা ঘিরে ধরলো তাঁকে। এর মধ্য থেকে এক শিক্ষার্থী তাঁকে প্রশ্ন করলেন— ‘স্যার, কোন্ কোন্ বই আপনার প্রিয়, যা আপনার মনন গঠনে সহায়তা করেছে?’

শিক্ষার্থীর প্রশ্নের জবাবে ড. কালাম বললেন— ‘আমার পড়া চারটি বই, যা আমার খুব আত্মার কাছাকাছি।’ এর পর তিনি চারটি বইয়ের কথা বলেন।

প্রথমটি হলো— নোবেলজয়ী লেখক ড. অ্যালেন্সিস ক্যারেলের লেখা ‘ম্যান দ্য আননোন’। মানুষের যেহেতু মন ও শরীর অবিচ্ছেদ্য বিষয় সেহেতু রোগির চিকিৎসার জন্য মন ও শরীরের চিকিৎসা যুগপৎভাবে হওয়া উচিত। এই বইয়ে রোগিকে সারিয়ে তুলতে কীভাবে মন ও শরীরের চিকিৎসা করা দরকার তা সুন্দরভাবে নির্দেশ করা হয়েছে। একটিকে অবহেলা করে অপরটি সারিয়ে তোলা যায় না। এটি পড়লে জানা যাবে মানবদেহ কোনো যান্ত্রিক কাঠামো নয় বরং অত্যন্ত মেধাদীপ্ত উপায়ে নির্মিত ও স্পর্শকাতর ফিডব্যাক সিস্টেমে পরিচালিত একটি অর্গানিজম। যারা বড় হয়ে চিকিৎসক হতে চায় এই বইটি তাদের পড়তে বলেছেন ড. কালাম।

দ্বিতীয় বই— তিরুভাল্লুভার’র লেখা ‘থিরুক্কুরাল’। এই বইয়ে জীবনের অপূর্ব কিছু দিক নির্দেশনা রয়েছে। তৃতীয় বইটি হলো— লিলিয়ান ইখলার ওয়াটসনের লেখা ‘লাইট ফ্রম মেনি ল্যাম্পস্’। কীভাবে বাঁচতে হবে তাঁর নির্দেশনা রয়েছে এই বইয়ে। বইটি তাঁর জীবনে অমূল্য পথ প্রদর্শক হিসেবে কাজ করেছে। আর চতুর্থ বইটি হলো ড. কালামের সার্বক্ষণিক সঙ্গী, পবিত্র কোরআন শরীফ।

চলবে...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *