September 21, 2020

বদলে গেলো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নাম

তামিলনাড়ুর উপকূল এলাকার একটি গ্রামে জন্ম নেওয়া ভারতের সবচেয়ে জনপ্রিয় রাষ্ট্রপতি তথা অন্যতম সেরা বিজ্ঞানী ড. এ পি জে আবদুল কালাম। তখন কে জানতো দরিদ্র পরিবারের এই ছেলেই একদিন বিশ্বের সবচেয়ে বড় গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি হবেন, কেই বা জানতো এই ছেলে একদিন জ্ঞানে-বিজ্ঞানে ভারতকে নের্তৃত্ব দিবে! কিন্তু দরিদ্র মা-বাবার সেই ছেলেই দেখিয়েছিলেন যে একাগ্রতা আর অধ্যাবসায় থাকলে মানুষ যে কোনো উচ্চতায় পৌঁছতে পারে। ড. কালাম নিজেকে পাহাড়ের সর্বোচ্চ বিন্দুতে নিয়ে গিয়েছিলেন নিজ যোগ্যতায়। নিজের কর্মগুণে মানুষের মনে স্থায়ীভাবে আসন গেড়েছিলেন। যে আসন থেকে মানুষ তাঁকে কোনোদিনও নামাবে না, তাঁর কর্মগুণেই অমর হয়ে থাকবেন সবার মনে।

ড. কালাম মারা যাবার পর ভারতের অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নামই বদলে গিয়েছিলো। তাঁকে শ্রদ্ধা জানাতে, চিরদিন স্মরণীয় করে রাখতে সেসব প্রতিষ্ঠানের নাম বদলে তাঁর নামে নামকরণ করা হয়। এমন কয়েকটি প্রতিষ্ঠান হলো—

  • বিহারের কিষাণগঞ্জের একটি কৃষি কলেজের নাম বদলে ‘ড. কালাম কৃষি কলেজ রাখা হয়।
  • উত্তর প্রদেশ টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটির নামকরণ করা হয় ‘এ পি জে আবদুল কালাম টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটি।’
  • কেরালার কল্লাম শহরের টারাবানকোর মেডিকেল কলেজ হসপিটালের নাম বদলে রাখা হয় ‘এ পি জে আবদুল কালাম মেমোরিয়াল টারাবানকোর ইনস্টিটিউট অফ ডাইজেটিভ ডিজিজ।’
  • ড. কালামের নামে কেরালার মহাত্মা গান্ধী ইউনিভার্সিটিতে একটি নতুন একাডেমিক কমপ্লেক্স নির্মাণ করা হয়।
  • পুণ্ডচেরিতে একটি নতুন সায়েন্স সেন্টার করা হয়।
  • কেরালা টেকনোলজিক্যাল ইউনিভার্সিটির নাম বদলে রাখা হয় ‘এ পি জে আবদুল কালাম টেকনোলজিক্যাল ইউনিভার্সিটি’।
  • উড়িশার একটি দ্বীপের নাম রাখা হয় ‘আবদুল কালাম দ্বীপ’, যে দ্বীপটিতে তিনি ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়েছিলেন।

চলবে...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *